তিলোত্তমা মেহেন্দিগঞ্জ_3

৪) স্বাস্থ্য সেবা পরিচর্যার জন্য আছে ৫০ শয্যাবিশিষ্ট থানা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স। উলানিয়া জমিদার ষ্টেটের আওতাধীন মাতৃসদন ক্লিনিক এলাকা বিত্তক কমিউনিটি ক্লিনিক সহ বন্দর বাজারে আছে বেশ কয়টি প্রাইভেট ক্লিনিক।

৫) শিক্ষা ব্যবস্থায় প্রাচীন যুগের না হইলেও ততকালিন জমিদারী যুগে ১৯১২ ইং সনে স্থাপিত উলানিয়া করোনেশন মাধ্যমিক বিদ্যালয়। আরো প্রায় ২০ টির মতন মাধ্যমিক বিদ্যালয়। আছে জুনিয়র স্কুল, সরকারী প্রাথমিক, রেজিঃ প্রাথমিক বিদ্যালয়, অসংখ মক্তব, মাদ্রাসা বর্তমানের তালমিলিয়ে আছে কিন্ডার গার্টেন বিদ্যাপিঠ। আরসি কলেজ, এম এ খান কলেজ, মহিলা ও মাদ্রাসা ডিগ্রীকলেজ সহ ৫টি ডিগ্রী কলেজ এবং মাদারতলী ১একটি মাদ্রাসা কলেজও আছে।
শিক্ষা বব্যবস্থার নিয়মানুসারে আধুনিকতার সর্ব সামনযষ্যতা বজায় রেখে আছে প্রতিযোগিতাময় শিক্ষা পদ্ধতিতে।

৬) ধর্মীয় উপাসনার জন্য শত শত বা হাজর সাল পুরানো নাম না জানা সলদির গায়েবি মসজিদ। নিপুন শৈল্পিকতায় অপরূপ কারুকাজ খচিত উলানিয়ার জমিদার বাড়ির মসজিদটি সহ আছে দুই শতাধিক মসজিদ ও মন্দির।

৭) আছে জমিদারী যুগের জমিদার ষ্টেটের প্রশাসনিক ও ব্যবহারীক ভবনের স্থাপনা সহ পুরানামলের স্মৃতিগাথা অনেক নিদর্শনা। যাকিনা যুগের সাক্ষী হয়ে এখনও প্রত্ন তত্বের খাতায় স্থান পায়নি। তাই পরিচর্যাহীন পরিত্যাক্ত হয়ে অনাদর আর অবহেলার কারণে ভিতীকর রহস্যে আবৃত ভূতাশ্রমে পরিনত হয়ে আছে।

TO BE CONTINUE....



Thank for reading this post. Do not forget to like, share and comment. Your comment can be so helpful for me.
Thanks for supporting me in my work.
:)

Comments

Popular Posts